1. faysal.rakib2020@gmail.com : admin :
  2. mdrubelmollah1989@gmail.com : Md.Rubel Mollah : Md.Rubel Mollah
November 30, 2023, 2:42 pm

বরিশাল সিটি নির্বাচন: কাউন্সিলর পদে বিএনপি নেতাদের প্রতিদ্বন্দ্বিতার প্রস্তুতি

  • আপডেটের সময় : Monday, May 1, 2023
  • 72 ০ বার দেখছেন

 

আগামী ১২ জুন বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচন। সময় যত ঘনিয়ে আসছে নির্বাচন নিয়ে সম্ভাব্য প্রার্থীদের প্রস্তুতিও জোড়ালো হচ্ছে। তবে এবারের নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছে না বিএনপি। তাই মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার আলোচনায়ও নেই দলটি।

তবে মেয়র পদে না থাকলেও কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বিএনপি নেতারা। এরই মধ্যে নির্বাচনের মনোনয়নপত্রও তুলেছেন অনেকে। আর এরা সবাই মহানগর এবং ওয়ার্ড বিএনপির গুরুত্বপূর্ণ পদে আছেন।

বিএনপি নেতা এবং অনুসারীরা বলছেন, ‘সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণ না করার যে সিদ্ধান্ত, তা প্রশ্নবিদ্ধ করছে সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থীদের নির্বাচনের প্রস্তুতিগ্রহণ। তবে সংশ্লিষ্ট নেতারা বলছেন, প্রস্তুতি মানেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা নয়। প্রস্তুতি নিলেও দলের সিদ্ধান্তের বাইরে যাবেন না তারা। আর দলের দায়িত্বশীলরা বলছেন, যারা কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন, তাদের বিরুদ্ধে কেন্দ্রের নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জানা গেছে, ‘বরিশাল মহানগরীকে দলের ভোটব্যাংক হিসেবে দেখছে বিএনপি। এমনকি ইতিপূর্বে সিটি করপোরেশন নির্বাচনগুলোতে কাউন্সিলর পদে বিজয়ের ক্ষেত্রে সংখাগরিষ্ঠতাও পেয়েছে দলটি। বর্তমান আওয়ামী লীগের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর নেতৃত্বাধিন পরিষদেও রয়েছেন মহানগর বিএনপির সদস্য সচিবসহ বিএনপি দলীয় ৬ জন কাউন্সিলর।

নগরভবন সূত্র বলছে, ‘সিটি করপোরেশন প্রতিষ্ঠার পরে গত চারবারের নির্বাচনে ৩০টি ওয়ার্ডের বেশিরভাগ ওয়ার্ডেই বিএনপির কাউন্সিলর ছিলেন। এদের মধ্যে একটানা তিন থেকে চারবারের বিজয়ী কাউন্সিলরও রয়েছেন। কিন্তু গত নির্বাচনে এসব জনপ্রিয় কাউন্সিলরাও হেরে যান ভোটের লড়াইতে। তবে ওই নির্বাচনে পক্ষপাতিত্ব এবং ভোট জালিয়াতির অভিযোগ সাবেক ওইসব কাউন্সিলরদের।

যদিও এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী এবং ভোটের পূর্ববর্তি পরিস্থিতিতে প্রতিদ্বন্দ্বিতার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বিএনপির সাবেক এবং বর্তমান কাউন্সিলররা। এরই মধ্যে নগরীর ৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সেলিম হাওলাদার ও ৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর হারুন অর রশীদ নির্বাচন কমিশন থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন বলে দলীয় সূত্র নিশ্চিত করেছে।

বরিশাল আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ‘গতকাল রোববার পর্যন্ত সিটি করপোরেশনের ৩০টি ওয়ার্ডের মধ্যে ২৭টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য ৫৯টি এবং সংরক্ষিত ১০টি ওয়ার্ডে ১৮টি করে মনোনয়নপত্র বিক্রি হয়েছে। শুধুমাত্র সাধারণ ৭, ১৯ এবং ২৮ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে কেউ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেননি।

এরমধ্যে ৭ নম্বর ওয়ার্ডে রফিকুল ইসলাম খোকন এবং ১৯ নম্বর ওয়ার্ডে গাজী নঈমুল হোসেন লিটু কাউন্সিলর হিসেবে আছেন। এরা দুজনই সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র এবং আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা।

বরিশাল আঞ্চলিক নির্বাচন অফিসের দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, ‘২৭টি ওয়ার্ডে যে ৫৯ জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছে তাদের মধ্যে অনেকেই বিএনপি নেতা। তবে মনোনয়নপত্র দাখিলের আগপর্যন্ত তাদের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার বিষয়টি নিশ্চিতভাবে বলা যাচ্ছে না।
তবে মহানগর বিএনপির নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, ‘১ নম্বর ওয়ার্ডে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মজিবর রহমান সরোয়ারের শ্যালক ও সাবেক কাউন্সিলর সৈয়দ সাইদুল হাসান মামুন, ৩ নম্বর ওয়ার্ডে বর্তমান কাউন্সিলর ফারুক মৃধা, ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর ও ওয়ার্ড বিএনপির আহ্বায়ক মাইনুল হোসেন, ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর ও মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক হাবিবুর রহমান টিপু, ৭ নম্বর ওয়ার্ডে মহানগর বিএনপির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আকবর অথবা তার ভাই সৈয়দ আফজাল, ৮ নম্বর ওয়ার্ডে মহানগর বিএনপির সদস্য সেলিম হাওলাদার, ৯ নম্বর ওয়ার্ডে মহানগর বিএনপি নেতা হারুন অর রশীদ, ১৮ নম্বর ওয়ার্ডে ওয়ার্ড বিএনপির সদস্য সচিব জিয়াউল হক মাসুম এবং জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক জাবের আবদুল্লাহ সাদী, ২২ নম্বর ওয়ার্ডে মহানগর বিএনপির ১ নম্বর সদস্য আনম সাইফুল আহসান আজিম, ২৪ নম্বর ওয়ার্ডে মহানগর বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি ফিরোজ আহমেদ, ২৬ নম্বর ওয়ার্ডে ওয়ার্ড বিএনপির সাবেক সভাপতি ফরিদ উদ্দিন আহমেদ এবং ২৮ নম্বর ওয়ার্ডে ওয়ার্ড বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

এছাড়া সংরক্ষিত আসনে বিএনপি এবং মহিলা দল নেত্রী জাহানারা বেগম, সেলিনা বেগম এবং রাশিদা বেগম নির্বাচনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছেন বলে দলীয় সূত্র নিশ্চিত করেছে। এছাড়া সিটি করপোরেশনের সাবেক দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র আলতাফ মাহমুদ সিকদার ২১ নম্বর এবং কেএম শহীদুল্লাহ ১২ নম্বর ওয়ার্ড থেকে পুনরায় নির্বাচনে অংশগ্রহণের গুঞ্জন রয়েছে। তবে মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব ও বর্তমান কাউন্সিলর মীর জাহিদুল কবির জাহিদ নির্বাচনে যাবেন না বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ও ২১ নম্বর ওয়ার্ডের চারবারের সাবেক কাউন্সিলর আলতাফ মাহমুদ সিকদার বলেন, ‘গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে বিএনপি নির্বাচনে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত যৌক্তিক। তবে কাউন্সিলর পদে নির্বাচন নিয়ে এখনো সুস্পষ্ট কোন নির্দেশনা আসেনি। সে কারণে বিএনপির সাবেক এবং বর্তমান অন্তত ১৭-১৮ জন কাউন্সিলররা নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছেন।

তবে প্রস্তুতি মানেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা নয়। মনোনয়নপত্র সংগ্রহ, দাখিল এবং প্রত্যাহারের পূর্বে পর্যন্ত প্রার্থী বলা যাবে না। যারা মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছে বা করবেন তারা শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে যাবেন কিনা সেটা দেখতে হবে।

তিনি বলেন, ‘বিএনপি সিটি করপোরেশন নির্বাচনে যাবে না বলে বলে মেয়র পদে প্রার্থী দেয়নি। সেখানে বিএনপির পদধারী নেতারা কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করলে দলের সিদ্ধান্ত প্রশ্নবিদ্ধ হবে। তাই যাদের দলের পদ আছে তারা চাইলেও নির্বাচন করতে পারবে না। আর করতে হলে দল থেকে পদত্যাগ করতে হবে বলে নির্দেশনা রয়েছে। আমি নিজেও প্রার্থিতা না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এমনকি ১২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কেএম শহীদুল্লাহও নির্বাচনে যাবে না বলে ঘোষণা দিয়েছে।

মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক মনিরুজ্জামান খান ফারুক বলেন, ‘দলীয় নেতারা কাউন্সিলর পদে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন কিনা, সে বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোন তথ্য নেই। তবে তারা নির্বাচন করবে কিনা, সেটা মনোনয়নপত্র দাখিলের পরে বোঝা যাবে। বিএনপির পদধারী কোন নেতা নির্বাচনে গেলে অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে কেন্দ্রের নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
IT Cornerbd.com Call:01711073884
Theme Customized By BreakingNews